সর্বোচ্চ ৪৯৯, পাসের হারে রেকর্ড, করোনার কোপে এবার উচ্চমাধ্যমিকে নেই মেধাতালিকা

desinews

কলকাতা : এবার উচ্চমাধ্যমিকে কোনও মেধাতালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে না। বিকেল ৪টেয় ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে এবছরের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ফল। সাংবাদিক বৈঠক করে একথা জানালেন উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি মহুয়া দাস।

তিনি বলেন, “এবার কোনও মেধাতালিকা হচ্ছে না। বিকেল ৪টেয় ফলপ্রকাশ। ৪টে ওয়েবসাইট থেকে ফল জানা যাবে। ফলাফল জানা যাবে WWW.WBRESULTS.NIC.IN এবং WWW.WBCHSE.NIC.IN  সাইটগুলি থেকে।”  তবে আজ ফল প্রকাশিত হলেও আজ-ই মার্কশিট হাতে পাচ্ছে না পরীক্ষার্থীরা। ৩১ জুলাই দুপুর ২টো থেকে  স্কুল থেকে মার্কশিট সংগ্রহ করতে পারবে পরীক্ষার্থীরা। এবছর ছাত্রদের থেকে ছাত্রীদের সাফল্য বেশি বলে জানিয়েছেন উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সভাপতি। পাশাপাশি গতবারের থেকে এবারে বেড়েছে পাসের হার। এবারে পাসের হার ৯০.১২ শতাংশ। গতবার ছিল ৮৬.২৯ শতাংশ।

প্রসঙ্গত, চলতি বছর ১২ মার্চ থেকে শুরু হয়েছিল উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। ২৭ মার্চ পর্যন্ত পরীক্ষা চলার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই করোনার জেরে লকডাউন শুরু হয়ে যায়। ফলে ২১ মার্চ পর্যন্ত নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী পরীক্ষা সম্পন্ন করা যায়। বাকি পরীক্ষা স্থগিত হয়ে যায়। পরে বাকি পরীক্ষা বাতিল বলে ঘোষণা করে উচ্চশিক্ষা দফতর। পর্ষদ সভাপতি মহুয়া দাস জানান, এরপর ৭ মে থেকে অফিসের কাজকর্ম শুরু হয় ঠিকই। কিন্তু উত্তরপত্র সংগ্রহ করা ছিল একটা চ্যালেঞ্জ। ১০০টি স্টেশন ও থানায় জমা ছিল সব উত্তরপত্র।

ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর অনলাইনে পিপিএস ও পি পি আর করা যাবে। যেসব বিষয়ের পরীক্ষা হয়েছে শুধুমাত্র সেগুলোর ক্ষেত্রেই করা যাবে। পিপিএস ও পিপিআর-এর টাকা কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। পিপিএসের জন্য ৫০ টাকা ও পিপিআরের জন্য ৭৫ টাকা। উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সভাপতি জানিয়েছেন, এবছর পাসের হার সর্বোচ্চ। মোট পরিক্ষার্থী ছিল ৭ লক্ষ ৬১ হাজার ৫৮৩ জন। মোট উত্তীর্ণ হয়েছে ৯০.১৩ শতাংশ। ছাত্রদের থেকে ছাত্রীদের সাফল্যের হার বেশি। ছাত্রীরা ৯০ শতাংশের বেশি পাস করেছে। বিজ্ঞানে মোট পাস করেছে ৯৮.৮৩ শতাংশ। মোট পরীক্ষার্থীর ৫০ শতাংশ ৬০ শতাংশের বেশি নম্বর পেয়েছে। ৫০০ নম্বরের মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর উঠেছে ৪৯৯। অর্থাৎ  ৯৯.৮ শতাংশ। ৯০ শতাংশের বেশি নম্বর পেয়েছে ৩০ হাজার ২২০ জন। A+ পেয়েছে ৮৪ হাজার ৭৪৬ জন।

 

You may like

COVID-19 Live Updates